উপাদান

প্রতি ৫ মিলি সিরাপে আছে-
  • ডেক্সট্রোমিথোরফেন হাইড্রোব্রোমাইড বিপি ২০ মিগ্রা
  • ফিনাইলএফ্রিন হাইড্রোক্লোরাইড বিপি ১০ মিগ্রা
  • ট্রাইপ্রোলিডিন হাইড্রোক্লোরাইড বিপি ২.৫ মিগ্রা

নির্দেশনা

এই প্রিপারেশনটি ক্ষনস্থায়ীভাবে নিম্নোক্ত উপসর্গগুলো দূর করে, যা সাধারণত ঠান্ডা, এলার্জি রাইনাইটিস অথবা শ্বাসতন্ত্রের এলার্জির কারণে তৈরী হয়:
  • নন-প্রোডাক্টিভ কাশি যা গলা অথবা ব্রোঙ্কিয়াল উপদ্রব এর কারণে হয়
  • সর্দি
  • হাঁচি
  • নাক বা গলা ব্যথা
  • চোখ চুলকানি ও চোখ দিয়ে পানি পড়া
  • অনুনাসিক জমাট বাঁধা

ফার্মাকোলজি

এই প্রিপারেশনটি হচ্ছে এন্টিটাসিভ, ডিকঞ্জেস্ট্যান্ট এবং এন্টিহিস্টামিন এর মিশ্রন। ডেক্সট্রোমিথোরফেন হচ্ছে নিরাপদ, কার্যকরী, নন-নারকোটিক, এন্টিটাসিভ উপাদান যা মেডুলাতে অবস্থিত কফ সেন্টারে কেন্দ্রীয়ভাবে কাজ করে। ইহার গঠনগত ভাবে মর্ফিনের সাথে মিল থাকা সত্ত্বেও, ইহার কোন বেদনানাশক এবং অভ্যাস তৈরী করা উপাদান নেই এবং ইহা সাধারনত ঘুমের উদ্রেক করে। ফিনাইলএফ্রিন একটি ডিকঞ্জেস্ট্যান্ট যা নাসারন্ধ্রের রক্তনালীকে সংকুচিত করে। ফিনাইএফ্রিন ব্যবহার করা হয় স্টাফি নোজ, সাইনাস এবং কানের উপসর্গ থেকে সাময়িকভাবে মুক্তি দেয়ার জন্য যা ঠান্ডা, জ্বর, এলার্জি, সাইনোসাইটিস এবং ব্রঙ্কাইটিস এর কারনে হয়। এই ওষুধ কান এবং নাকের ফোলা কমিয়ে দিয়ে কাজ করে যার ফলে অস্বস্তি কমে যায় এবং ফলে সহজে শ্বাস নিতে সহযোগীতা করে। ট্রাইপ্রোলিডিন একটি এন্টিহিস্টামিন যা এলার্জি এবং এলার্জি জনিত জ্বর এবং ঠান্ডা এর উপসর্গ দূর করে। এই উপসর্গগুলো হচ্ছে ফুসকুড়ি, চোখ দিয়ে পানি পড়া, চোখ নাক/গলা/ত্বক চুলকানো, কফ, নাক দিয়ে পানি পড়া এবং হাঁচি। ইহা এইচ-১ হিস্টামিন রিসেপ্টরকে বন্ধ করে যার ফলে ঘুমের উদ্রেগ করতে পারে। ইহা এসিটাইলকোলিন রিসেপ্টরকে বন্ধ করার মাধ্যমে চোখ দিয়ে পানি পড়া ও নাক দিয়ে পানি পড়ার উপসর্গগুলো দূর করে।

মাত্রা ও সেবনবিধি

প্রাপ্ত বয়স্ক এবং ১২ বছরের বেশি বাচ্চাদের জন্য: ১ চা চামচ (৫ মিলি) দিনে ৪ বার ৪ ঘন্টা পরপর

৬-১২ বছরের মধ্যে: ১/২ চা চামচ দিনে ৪ বার ৪ ঘন্টা পরপর

শিশু ও বয়ঃসন্ধিকালের ব্যবহার: ৬ বছরের নিচের বাচ্চাদের সেবনের পূর্বে ডাক্তারের পরামর্শ অবশ্যই জরুরী।

ঔষধের মিথষ্ক্রিয়া

এই ওষুধের সাথে নির্দিষ্ট এমএও ইনহিবিটরগুলি গ্রহণ করলে গুরুতর (সম্ভবত মারাত্মক) ওষুধের মিথস্ক্রিয়া হতে পারে। এই ওষুধের সাথে চিকিৎসার সময় আইসোকারবোক্সাজিড, মিথাইলিন ব্লু, মোক্লোবেমিড, ফেনেলজিন, প্রোকারবাজিন, রাসাজিলিন, সেলেজিলিন, অথবা ট্র্যানিলছিপ্রোমিন গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকুন। বেশিরভাগ এমএও ইনহিবিটস এই ঔষধের সাথে চিকিৎসার দুই সপ্তাহ আগে নেওয়া উচিত নয়।

প্রতিনির্দেশনা

লিভার আক্রাস্ত অথবা এ্যাজমা রোগীদের এই ওষুধ পরিহার করতে হবে এবং যেসব রোগী মনোঅ্যামাইনো অক্সিডেজ ইনহিবিটর জাতীয় ওষুধ গ্রহণ করে অথবা ২ সপ্তাহ যাবত এই জাতীয় ওষুধ বন্ধ করেছে তাদের ক্ষেত্রে এই ওষুধ প্রতিনির্দেশক।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

ইহা ঘুমের উদ্রেগ এবং কোষ্ঠ্যকাঠিণ্য করতে পারে। অন্যান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার মধ্যে গ্যাস্ট্রিক অস্বস্থি অন্যতম। মর্ফিন টাইপ এর উপর আপাতপক্ষে কোন শারীরিক নির্ভরতা তৈরী করে না।

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে

এই মিশ্রনের গর্ভাবস্থায় এবং স্তন্যদানকালীন সময়ে ব্যবহারের কোন সঠিক ডাটা নেই।

সতর্কতা

এই মিশ্রন ঘুমের উদ্রেগ করতে পারে। যদি ঘুম ঘুম ভাব হয় তাহলে গাড়ি অথবা মেশিনারিজ যন্ত্রাংশ পরিচালনা করা যাবে না। এই ওষুধ ব্যবহারের সময় কোন প্রকার অ্যালকহল জাতীয় পানিয় গ্রহণ করা যাবে না। যেসব রোগীদের মৃগীরোগ, প্রোস্টেট হাইপারট্রোপি, গ্লুকোমা, হেপাটিক রোগ, হাইপারটেনশন, হৃদরোগ, বহুমূত্র রোগ, হাইপারথাইরয়ডিজম আছে তাদের ক্ষেত্রে সতর্কতার সঙ্গে ব্যবহার করা উচিত। যদি এই উপসর্গগুলো ১ সপ্তাহের মধ্যে ভাল না হয় অথবা একসাথে অতিমাত্রায় জ্বর থাকে তাহলে ডাক্তার এর পরামর্শ ছাড়া এই ওষুধ সেবন করা যাবে না।

মাত্রাধিক্যতা

অতিমাত্রায় ওষুধ সেবন করলে হাসপাতালে ভর্তি করতে হবে। অতিমাত্রায় ওষুধ সেবন করলে শ্বাসযন্ত্রের সমস্যা, প্যারানোয়েড সাইকোসিস, বিভ্রান্ত্রি, হ্যালুসিনেশন এবং কাঁপুনি হতে পারে।

থেরাপিউটিক ক্লাস

Combined cough suppressants

সংরক্ষণ

আলো থেকে দূরে, ঠান্ডা ও শুকনো স্থানে রাখুন (৩০° সেলসিয়াস তাপমাত্রার নিচে রাখুন)। সকল ওষুধ শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন।