নির্দেশনা

ইটোরিকক্সিব নিম্নোক্ত উপসর্গে নির্দেশিত-
  • অস্টিওআর্থ্রাইটিস
  • রিওমাটরয়েড আর্থ্রাইটিস
  • এঙ্কাইলোজিং স্পনডাইলাইটিস, এবং
  • একিউট গাউটিআথ্রাইটিস সহ বিভিন্ন রোগের বেদনাদায়ক এবং জ্বালাপোড়া উপসর্গে।
  • সার্জারী পরবর্তী দাঁতের ব্যথায় স্বল্প সময়ের জন্য নির্দেশিত।

মাত্রা ও সেবনবিধি

প্রাপ্ত বয়স্ক ও ১৬ বছরের ঊর্ধ্বে-

অস্টিওআথ্রাইটিস: নির্দেশিত মাত্রা ৩০ মিগ্রা দিনে এক বার। পর্যাপ্ত ফলাফল পাওয়া না গেলে কিছু কিছু রোগীদের বেলায় মাত্রা বৃদ্ধি করে ৬০ মি.গ্রা. দিনে এক বার গ্রহণে কাঙ্খিত ফলাফল পাওয়া যায়।

রিউমাটয়েড অস্টিওআথ্রাইটিস: নির্দেশিত মাত্রা ৯০ মিগ্রা দিনে এক বার।

এঙ্কাইলোটিজং স্পনডাইলাইটিস: নির্দেশিত মাত্রা ৯০ মিগ্রা দিনে এক বার।

একিউট গাউটিআথ্রাইটিস: নির্দেশিত মাত্রা ১২০ মিগ্রা দিনে এক বার। 

সার্জারী পরবর্তী দাঁতের ব্যাথা: নির্দেশিত মাত্রা ৯০ মিগ্রা দিনে এক বার যা সবোর্চ্চ ৩ দিনের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা উচিত ।

প্রতিনির্দেশনা

যে সমস্ত রোগী ইটোরিকক্সিবের প্রতি অতিসংবেদনশীল তাদের ক্ষেত্রে পরিপাকতান্ত্রিক ক্ষত কিংবা রক্তক্ষরনের ইতিহাস থাকলে, হাঁপানীর পূর্ব ইতিহাস থাকলে; একিউট রাইনাইটিস, নাজাল পলিপ্‌স, এনজিওনিউরেটিক ইডিমা, আর্টিকারিয়া, এসিটাইলসেলিসাইলিক এসিড বা ককস্-২ সহ যে কোন এনএসআইডি গ্রহণে এলার্জি পরিলক্ষিত হলে; গর্ভাবস্থায় এবং স্তন্যদানকালে; যকৃত ও বৃক্কের অসমকার্যকারিতায়; শিশু ও ১৬ বছরের নীচের কৈশোর; অন্ত্রের ইনফ্লাম্যাটরি ডিজিসে; কনজেসটিভ হার্ট ফেইলিওর; অতিরিক্ত উচ্চরক্তচাপ যাদের সার্বক্ষনিক ১৪০/৯০ এমএম পারদ থাকে এবং নিয়ন্ত্রন করতে সমস্যা হয়; প্রতিষ্ঠিত ইসকিমিক হার্ট ডিজিস, পেরিফেরাল আর্টারিয়াল ডিজিস, এবং সেরিব্রোভাসকুলার ডিজিসে ইটোরিকক্সিব প্রতিনির্দেশিত।

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে

ইটোরিকক্সিব গর্ভাবস্থায় এবং স্তন্যদানকালে নির্দেশিত নয়।

বিশেষ ক্ষেত্রে ব্যবহার

ইটোরিকক্সিব যকৃত ও বৃক্কের অসমকার্যকারিতায় নির্দেশিত নয়
ইটোরিকক্সিব শিশু ও ১৬ বছরের নীচের কৈশোরদের ক্ষেত্রে নির্দেশিত নয়

থেরাপিউটিক ক্লাস

Non-steroidal Anti-inflammatory Drugs (NSAIDs)

সংরক্ষণ

৩০° সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রার নিচে আলো ও আর্দ্রতা থেকে দূরে, ঠাণ্ডা ও শুষ্ক স্থানে রাখুন। সকল প্রকার ওষুধ শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন।