নির্দেশনা

ইকোনেট নিম্নবর্ণিত চিকিৎসায় ত্বকে বাহ্যিক ভাবে প্রয়োগের জন্য নির্দেশিত-
  • ট্রাকোফাইটন রুব্রাম, ট্রাকোফাইটন মেণ্টাগ্রোফাইটস, ট্রাকোফাইটন টনসুর‍্যান্স, মাইক্রোস্পোরাম ক্যানিস, মাইক্রোস্পোরাম অডুয়িনি, মাইক্রোস্পোরাম জিপসিয়াম, এপিডার্মোফাইটন ফ্লোকোসাম ইত্যাদি ছত্রাক দ্বারা সংঘটিত টিনিয়া পেডিস (পায়ের পাতার বাহ্যিক ত্বকীয় দীর্ঘমেয়াদী ছত্রাকের সংক্রমণ), টিনিয়া ক্রুরিস (উরুসন্ধি স্থলের ছত্রাকের সংক্রমণ), এবং টিনিয়া করপোরিস (দাদ), টিনিয়া ভার্সিকালারের চিকিৎসায়।
  • কিউটেনিয়াস ক্যান্ডেডিয়াসিসি (চর্মে ক্যান্ডিডিয়া জাতীয় ছত্রাকের সংক্রমণ) ও টিনিয়া ভার্সিকালারের চিকিৎসায়।

ফার্মাকোলজি

ইকোনাজল নাইট্রেট ছত্রাকের অক্সিডেটিভ এনজাইমের উপর প্রভাব বিস্তার করে জীবন ধ্বংসকারী হাইড্রোজেন পার অক্সাইড জমা করে। এছাড়াও ইকোনাজল ছত্রাকের কোষপ্রাচীরের প্রয়োজনীয় উপাদান আরগোস্টেরল সংশ্লেষণে বাধা প্রদান করে৷

ঔষধের মাত্রা

ইকোনাজল নাইট্রেট ভ্যাজাইনাল ট্যাবলেট: একটি ট্যাবলেট রাতে শোবার সময় পরপর ৩ দিন ভ্যাজাইনার গভীরে প্রয়োগ করতে হবে। ঋতুচক্র চলাকালীন সময়েও চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে। যদিও তিন দিনের চিকিৎসাই যথেষ্ট কিন্তু পূনঃসংক্রমণের সম্ভাবনা থাকলে আরো বেশি দিন চিকিৎসা নিতে হবে।

ইকোনাজল নাইট্রেট ৩০ গ্রাম ক্রীম: সরবরাহকৃত প্রয়োগযন্ত্রে ক্রীম নিয়ে ভ্যাজাইনার গভীরে শোবার সময় অথবা দিনে দুই বার প্রয়োগ করতে হবে।

ইকোনাজল নাইট্রেট ১০ গ্রাম ক্রীম: ত্বকের সংক্রমিত এলাকায় দিনে ১ বার অথবা ২ বার হাতের আঙ্গুল দিয়ে মৃদুভাবে ঘষে প্রয়োগ করতে হবে।

টিনিয়া পেডিস (পায়ের পাতার বাহ্যিক ত্বকীয় দীর্ঘমেয়াদী ছত্রাকের সংক্রমণ), টিনিয়া ক্রুরিস (উরুসন্ধি স্থলের ছত্রাকের সংক্রমণ), এবং টিনিয়া করপোরিস (দাদ), এবং টিনিয়া ভার্সিকালারের চিকিৎসায় ইকোনাজল ক্রিম আক্রান্ত স্থানে পর্যাপ্ত পরিমাণে দিনে একবার প্রয়োগ করতে হবে। ক্রিমটি কিউটেনিয়াস ক্যান্ডিডাইয়াসিস (চর্মে ক্যান্ডিডিয়া জাতীয় ছত্রাকের সংক্রমণ) এর চিকিৎসায় সকাল ও সন্ধায় দিনে দুইবার প্রয়োগ করতে হবে।

বেশিরভাগ রোগীর ক্ষেত্রেই রোগের উপসর্গ এবং ওষুধের কার্যকারীতা চিকিৎসা শুরু করার পরপরই পাওয়া যায়। কিন্তু কিউটেনিয়াস ক্যান্ডিডাইয়াসিস (চর্মে ক্যান্ডিডিয়া জাতীয় ছত্রাকের সংক্রমণ) এর চিকিৎসায়, টিনিয়া ক্রুরিস (উরুসন্ধি স্থলের ছত্রাকের সংক্রমণ) এর এবং টিনিয়া করপোরিসের (দাদ) চিকিৎসায় অন্তত দুই সপ্তাহ পর্যন্ত এবং টিনিয়া পেডিসের চিকিৎসায় (পায়ের পাতার বাহ্যিক ত্বকীয় দীর্ঘমেয়াদী ছত্রাকের সংক্রমণ) এটি চার সপ্তাহ পর্যন্ত ব্যবহার করার প্রয়োজন হতে পারে যেন রোগটির পুনরাবির্ভাব না ঘটে।

যদি কোন রোগীর ক্ষেত্রে এই চিকিৎসা দেয়ার পরও উন্নতি না দেখা যায় সেক্ষেত্রে রোগীকে পুনরায় পরীক্ষা করতে হবে। টিনিয়া ভার্সিকালারের চিকিৎসায় সাধারণত চিকিৎসা করার দুই সপ্তাহ পর রোগীর রোগ নিরাময় হয়েছে কিনা এবং রোগী ছত্রাকমুক্ত কিনা তা জানা যায়।

সেবনবিধি

ইকোনাজল নাইট্রেট ভ্যাজাইনাল ট্যাবলেট প্রয়োগের নিয়মাবলী-
  • শুকনো ও পরিষ্কার হাত দিয়ে স্ট্রিপ থেকে একটি ট্যাবলেট বের করে নিন।
  • চিত হয়ে শায়িত অবস্থায় (supine position) ট্যাবলেটটি যোনীপথের গভীরে প্রবেশ করান।
  • কিছুক্ষণ এভাবে বিশ্রাম নিন যাতে ট্যাবলেটটি গলার (melt) সুযোগ পায়।
সাবধানতা-
  • এপ্লিকেটর বের করে নেয়ার সময় সিলিন্ডার ধরে বের করুন। এ সময় সাদা পিস্টনটি ধরবেন না। 
  • টিউবটি খুলুন এবং এপ্লিকেটরটি স্ক্রু করুন।
  • এপ্লিকেটরটি চার্জ করুন (ক্রীম ভরুন)
  • এপ্লিকেটরটি যোনীপথের গভীরে প্রবেশ করান এবং ক্রীম ডিসচার্জ করুন।

ঔষধের মিথষ্ক্রিয়া

ওয়ারফেরিন: যদি মুখে ওয়ারফেরিন এবং ইকোনাজোল নাইট্রেট একসাথে প্রয়োগের প্রয়োজন হয়, তাহলে ওয়ারফেরিনের রক্ত জমাট বাঁধা রোধী ক্ষমতা বেড়ে যেতে পারে। ক্রিমটি গজ ব্যান্ডেজ ব্যবহার করে প্রয়োগ করলে, প্রজনন অঙ্গে প্রয়োগ করলে এবং শরীরের বৃহৎ অংশ জুড়ে এটি প্রয়োগ করলে রক্তে ইকোনেট এর শোষন বেড়ে যেতে পারে। তাই এসব ক্ষেত্রে রক্ত জমাট বাঁধার সময় বা আন্তর্জাতিক নরমালাইজেশন অনুপাতের কি পরিবর্তন হয় তা সতর্কতার সাথে পর্যবেক্ষণ করতে হবে।

ক্যান্সারের ঝুঁকি: প্রাণীকুলের উপর করা দীর্ঘমেয়াদী পরীক্ষায় এটি ইকোনেট কোন ধরনের ক্যান্সারের ঝুঁকি তৈরী করে কিনা এ ধরনের কোন পরীক্ষা করা হয়নি।

প্রতিনির্দেশনা

যেসকল রোগীর ইকোনাজল নাইট্রেট ক্রিম অথবা এর অন্য কোন উপাদানের প্রতি অতিসংবেদনশীল প্রতিক্রিয়া রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে এটি নির্দেশিত নয়।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

ক্লিনিক্যাল গবেষণায় দেখা গেছে যেসকল রোগী ১% ইকোনেট দিয়ে চিকিৎসা করেছেন তাঁদের মধ্যে প্রায় ৩% রোগীর ক্ষেত্রে এ জাতীয় বিরূপ প্রতিক্রিয়াসমূহ পরিলক্ষিত হয় যেমন- ত্বকে প্রদাহ বা জ্বালা পোড়া অনুভব করা, যন্ত্রনা, চুলকানি, ত্বকের রক্তপ্রবাহ বেড়ে গিয়ে ত্বক রক্তবর্ণ ধারন করা। একটি ক্ষেত্রে চুলকানি যুক্ত ত্বকের র‍্যাশ এর ঘটনার প্রমাণ পাওয়া গেছে।

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে

গর্ভধারণ: মানুষের স্ত্রীযোনী পথে ইকোনাজল নাইট্রেট প্রয়োগে বিলম্বিত প্রসব কিংবা গর্ভধারণ সম্পর্কিত অন্য কোন বিরূপপ্রতিক্রিয়া প্রদর্শন করে না।

গর্ভাবস্থায়: প্রেগন্যান্সি ক্যাটাগোরি সি। গর্ভাবস্থার প্রথম ট্রাইমেস্টারের ক্ষেত্রে ভ্রুণের সম্ভাব্য ঝুঁকির চেয়ে ওষুধ গ্রহনে রোগীর উপকৃত হবার সম্ভাবনা বেশি হলেই কেবলমাত্র চিকিৎসকের পরামর্শে ইকোনাজোল নাইট্রেট ব্যবহার করা উচিত। শুধুমাত্র অতিজরুরী ক্ষেত্রে প্রয়োজন হলেই গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় ও তৃতীয় ট্রাইমেস্টারে কেবলমাত্র চিকিৎসকের পরামর্শে ইকোনাজোল নাইট্রেট ব্যবহার করা উচিত।

স্তন্যদানকালে: পরীক্ষায় ইকোনাজল নাইট্রেট মাতৃদুগ্ধে নিঃসৃত হয় কিনা তা জানা যায়নি। তাই স্তন্যদানকারী মায়েদের ক্ষেত্রে ইকোনাজল নাইট্রেট সতর্কতার সাথে প্রয়োগ করতে হবে।

সতর্কতা

ইকোনেট ক্রিম যেন কোন ভাবেই রোগীর চোখের সংস্পর্শে না আসে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে, কারণ এটি চোখের চিকিৎসায় নির্দেশিত নয়।

সাধারণ: যদি কোন রোগীর ক্ষেত্রে এ ধরণের অতিসংবেদনশীল প্রতিক্রিয়া অথবা রাসায়নিক উপাদান জনিত ত্বকে কোন ধরনের যন্ত্রনার লক্ষণ দেখা যায় সেক্ষেত্রে অবশ্যই ক্রিমটির প্রয়োগ বন্ধ রাখতে হবে। ইকোনাজল ক্রিম, শুধুমাত্র বাহ্যিক ভাবে প্রয়োগের জন্য। এটি যেন কোন ভাবেই রোগীর চোখের সংস্পর্শে না আসে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

মাত্রাধিক্যতা

এখন পর্যন্ত ইকোনেট এর মাত্রাতিরিক্ততার কোন প্রতিবেদন/ ঘটনা জানা যায়নি।

থেরাপিউটিক ক্লাস

Drugs used in Vaginal and Vulval condition, Topical Antifungal preparations

সংরক্ষণ

মেয়াদ শেষ হওয়ার পরে ব্যবহার করা যাবেনা। সকল ওষুধ শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন। শুধুমাত্র রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী বিতরণযোগ্য।