Unit Price: ৳ 0.42 (500's pack: ৳ 210.00)

নির্দেশনা

  • এটি শক্তিশালী দীর্ঘমেয়াদী কার্যকরী এ্যান্টিহিস্টাসিন হিসেবে নির্দেশিত এটি শক্তিশালী দীর্ঘমেয়াদী কার্যকরী এ্যান্টিহিস্টাসিন হিসেবে নির্দেশিত এছাড়াও এর বমিরােধী, নিদ্রা প্রশান্তিকারক বাড়তি প্রভাব রয়েছে
  • উপসর্গযুক্ত শ্বাসতন্ত্রের এবং ত্বকের এ্যালার্জির চিকিৎসায় নির্দেশিত
  • ওষুধ অথবা বহিরাগত প্রােটিনের প্রতি সংবেদনশীলতার প্রতিক্রিয়ায়, অ্যানাফাইল্যাকটিক প্রতিক্রিয়ায়
  • নিদ্রাকারক হিসেবে, নাকের এক ধরনের প্রদাহ, চামড়ায় ফুসকুড়ি এবং অনিদ্রায়
  • অস্ত্রোপাচার এবং প্রসবের পূর্বে নিদ্রাকারক হিসেবে অন্য কোন ওষুধের সহযােগে ব্যবহৃত হয়
  • শিশুদের নিদ্রাকারক হিসেবে। 

মাত্রা ও সেবনবিধি

প্রাপ্তবয়স্কদের ক্ষেত্রে: প্রারম্ভিক মাত্রা হল রাতে একটি ২৫ মিগ্রা ট্যাবলেট; যদি প্রয়ােজন হয় রাতে দুই অথবা তিনটি ২৫ মিগ্রা ট্যাবলেট পর্যন্ত বৃদ্ধি করা যেতে পারে। প্রয়ােজন হলে এ্যালার্জির সমস্যায় দিনে দুই থেকে তিনবার পর্যন্ত মাত্রা বৃদ্ধি করা যেতে পারে, সেক্ষেত্রে ১০ মিগ্রা এর এক অথবা দুইটি ট্যাবলেট দিয়ে চিকিৎসা শুরু করতে হবে এবং প্রয়ােজন অনুসারে বৃদ্ধি করতে হবে।

বয়স্কদের ক্ষেত্রে: মাত্রার কোন সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা নেই।

শিশুদের ক্ষেত্রে: খুবই সহজেই ৫ মি.গ্রা./৫ মি.লি. দিয়ে শিশুদের চিকিৎসা দেয়া যেতে পারে।

এ্যালার্জিতে একটি এ্যান্টিহিস্টামিন হিসেবেঃ
  • ২ থেকে ৫ বছরের শিশুদের ক্ষেত্রে: ৫ থেকে ১৫ মিগ্রা
  • ৫ থেকে ১০ বছরের শিশুদের ক্ষেত্রে: ১০ থেকে ২৫ মিগ্রা।
  • যেসব ক্ষেত্রে ২৪ ঘন্টার মধ্যে যেখানে দুইটি মাত্রার প্রয়ােজন হয় সেসব ক্ষেত্রে কম মাত্রা দ্বারা চিকিৎসা শুরু করা উচিত।
নিদ্রাকারক হিসেবেঃ
  • ২ থেকে ৫ বছরের শিশুদের ক্ষেত্রে: ১৫ থেকে ২০ মিগ্রা
  • ৫ থেকে ১০ বছরের শিশুদের ক্ষেত্রে: ২০ থেকে ২৫ মিগ্রা রাতে একটি একক মাত্রা হিসেবে দিতে হবে।

ঔষধের মিথষ্ক্রিয়া

  • প্রোমিথাজিন যেকোন এ্যান্টিকোলিনার্জিক এজেন্ট, ট্রাইসাইক্লিক এন্টিডিপ্রেসেন্ট, সিডেটিভ অথবা নিদ্রাকারক ওষুধের ক্রিয়া বৃদ্ধি করতে পারে। ওষুধ দিয়ে চিকিৎসার সময় এ্যালকোহল পান করা থেকে বিরত থাকা উচিত।
  • প্রোমিথাজিন প্রস্রাবের মাধ্যমে ইউমিনােলজিক গর্ভধারণ পরীক্ষা বাধাগ্রস্থ করে ভুল ফলাফল দিতে পারে। ত্বকের এ্যালার্জেন আহরণের পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে ৭২ ঘন্টা পূর্বে ফেনারগান গ্রহণ বন্ধ রাখা উচিত। যেহেতু এটি ত্বকের নিচে হিস্টামিনের কার্যকারিতাকে বাধা দেয় তাই ভুল ফলাফল পাওয়া যায়।
  • গাড়ি চালানাে এবং অন্যান্য ঝুঁকিপূর্ণ কাজের সময় ফেনারগান গাড়ি চালনা এবং অপারেটিং মেশিনের দক্ষতাকে যথেষ্ট প্রভাবিত করে। প্রথমবার ফেনারগান গ্রহণকারী রােগীদের কিছু দিন গাড়ি ও মেশিনারীজ নিয়ন্ত্রিত ভাবে চালানাে উচিত যতদিন না এটা প্রতিষ্ঠিত হয় যে তাদের কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্র ওষুধের প্রভাবে অতিসংবেদনশীল নয় এবং রােগী অস্থিতিবােধ, বিভ্রান্তি অথবা ঝিমুনিভাব দ্বার আক্রান্ত নয়।

প্রতিনির্দেশনা

  • দুই বছরের কম বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে প্রোমিথাজিনের ব্যাবহার নিষিদ্ধ।
  • প্রােমিথাজিন অথবা এর কোন উপাদানে প্রতি অতিসংবেদনশীলতায়।
  • প্রোমিথাজিন সেসব রােগীদের ব্যবহার করা উচিত নয় যারা কোমা অথবা অন্য যেকোন কারণে সিএনএস (কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রের) বিষাদগ্রস্ততায় ভুগছেন। নবজাতক অথবা মাতৃগর্ভ হতে অপরিণত অবস্থায় ভূমিষ্ঠ শিশুর ক্ষেত্রে এটি কোনভাবে দেয়া যাবে না।
  • যে সমস্ত রােগী গত ১৪ দিন এর মধ্যে মনােএ্যামিনাে অক্সিডেজ ইনহিবিটরস ব্যবহার করেছেন তাদের প্রোমিথাজিন ব্যবহার থেকে বিরত থাকা উচিত।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

  • কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রের সমস্যা- ঘটনা পুনরাবৃত্তি হওয়ার সম্ভাবনা জানা যায়নি: নিউরােলেপটিক ম্যালিগন্যান্ট সিনড্রোম প্রোমিথাজিনের অ্যান্টিকোলিনার্জিক প্রভাব এবং বিভ্রান্তি বিশেষত বয়স্ক রােগীদের মধ্যে প্রকট হওয়ার কারণে সংবেদনশীলতা, মাথা ঘােরা, মাথা ব্যথা এবং এজ্ট্রাপিরামিয়াল প্রভাব যেমন পেশী খিচুনি, মাথার ও মুখের টিকের মতাে চলন দেখা দিতে পারে। নিউরােলেপটিক ম্যালিগন্যান্ট সিনড্রোম (এনএমএস) নামক একটি অত্যন্ত মাথাব্যথা, দ্রুত হৃদস্পন্দন, বিভ্রান্তি, উত্তেজনা, হ্যালুসিনেশন বা প্রচুর ঘাম হয়, তাহলে চিকিৎসা বন্ধ করুন দ্রুত আপনার ডাক্তারের সাথে যােগাযােগ গুরুতর এবং কখনও কখনও মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে। যদি আপনার উচ্চ জ্বর, পেশিতে টান বা শক্ত হয়ে যায়, মাথা ঘােরা, তীব্র করুন।
  • প্রতিরােধ ব্যবস্থার ব্যাধি- খুবই বিরল কিছু ক্ষেত্রে এ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়ার সাথে অ্যার্টিক্যারিয়া, চামড়ায় ফুসকুড়ি, র‍্যাশ, চুলকানি এবং মারাত্মক এ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়ার (অ্যানাফাইলাঙ্সি) তথ্য পাওয়া গেছে।
  • ত্বক এবং ত্বকের টিস্যু ব্যাধি- পুনরাবৃত্তির হার অজানা: আলােক সংবেদনশীলতা।
  • বিপাক এবং পুষ্টি ব্যাধি- পুনরাবৃত্তির হার অজানা: অ্যানােরেঙ্গিয়া।
  • পরিপাকতন্ত্রজনিত ব্যাধি- পুনরাবৃত্তির হার অজানা: এপিগাস্ট্রিকে অস্বস্তি, মুখে শুল্কতা।
  • চোখের ব্যাধি- পুনরাবৃত্তির হার অজানা: ঝাপসা দৃষ্টি।
  • রক্ত এবং লিম্ফ্যাটিক সিস্টেমের ব্যাধি- পুনরাবৃত্তির হার অজানা: সিক্র্যাসিয়াস সহ হিমােলাইটিক অ্যানিমিয়া, অ্যাগ্রানুলােকাইটোসিস।
  • রেনাল এবং মূত্রথলির ব্যাধি- পুনরাবৃত্তির হার অজানা: ইউরিনারি রিটেনশন।
  • মানসিক রােগ- পুনরাবৃত্তির হার অজানা: নবজাতক, সদ্যোজাত এবং অকালে জন্মগ্রহণকৃত শিশুরা প্রােমিথাজিনের অ্যান্টিকোলিনার্জিক প্রভাবগুলির প্রতি সংবেদনশীল, অন্য শিশুরাও প্যারাজ্কিাল হাইপারএজইটিবিলিটি, অস্থিরতা, দুঃস্বপ্ন, সিঅরিয়েন্টশন প্রদর্শন করতে পারে।
  • কার্ডিয়াক ব্যাধি- পুনরাবৃত্তির হার অজানা:প্যালপিটেশন, অ্যারিথমিয়াস।
  • ভাস্কুলার ব্যাধি- পুনরাবৃত্তির হার অজানা: হাইপােটেনশন ।
  • হেপাটোবিলিয়ারি ব্যাধি- পুনরাবৃত্তির হার অজানা: জন্ডিস।
  • সাধারণ ব্যাধি এবং প্রয়ােগের স্থানের অবস্থা: পুনরাবৃত্তির হার অজানা: কান্তি।
কেবলমাত্র প্রস্তাবিত ক্ষেত্রে এই ঔষধ ব্যবহার করা যাবে। প্রস্তাবিত মাত্রা অতিক্রম করা যাবে না। প্রােমিথাজাইনের অপব্যবহার ঘটতে দেখা গেছে। ১০ দিনের বেশি সময় ব্যবহার করা যাবে না।

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে

গর্ভাবস্থায় ইপিডেমিওলজিক্যঅল তথ্য প্রমাণ এবং প্রানীকূলের উপর করা স্টাডিতে প্রােমিথাজিনের ব্যবহারে ক্ষতিকারক কিছু পাওয়া না গেলেও গর্ভাবস্থায় এটি ব্যবহার করা উচিত নয় যদি না চিকিৎসক এটি অত্যাবশ্যকীয় মনে করেন। নবজাতকের বিরক্তি এবং উত্তেজনার প্রবনতার সম্ভাব্য ঝুঁকির কথা বিবেচনা করে প্রসবের দুই সপ্তাহ পূর্বে প্রোমিথাজিন এর ব্যবহার নির্দেশিত নয়। প্রােমিথাজিন যদি গর্ভাবস্থার শেষের দিকে উচ্চ মাত্রায় দেওয়া হয়, তখন প্রােমিথাজিন শিশুর মধ্যে দীর্ঘস্থায়ী স্নায়ুবিক ব্যাঘাতের সৃষ্টি করে। গর্ভাবস্থায় প্রােমিথাজিন ব্যবহার করা উচিত যদি রােগীর সম্ভাব্য সুবিধাগুলি ভ্রুণের সম্ভাব্য ঝুঁকির তুলনায় অধিক করা হয়। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বুকের দুধে এর নিঃসরণের পরিমাণ খুবই নগণ্য। তবুও নবজাতকের বিরক্তি এবং উত্তেজনার প্রবনতার সম্ভাব্য ঝুঁকি আছে। প্রোমিথাজিন বুকের দুধে নিঃসৃত হয়। নবজাতকের বিরক্তিভাব ও উত্তেজনার ঝুঁকি রয়েছে। প্রোমিথাজিন স্তন্যপান করানাের ক্ষেত্রে ব্যবহারের সুপারিশ করা হয় না।

সতর্কতা

  • শিশু এবং কিশােরদের রেন্স সিনড্রোম এর লক্ষণ ও উপসর্গ থাকলে প্রােমিথাজিন ব্যবহার থেকে বিরত থাকা উচিত।
  • প্রোমিথাজিন ফুসফুসের নিঃস্বরণ ঘন বা শুকনাে কারতে পারে এবং শ্লেম্মা-নির্গমন ব্যাহত করতে পারে। এজন্য হাঁপানি, ব্রঙ্কাইটিস বা ব্রঙ্কাইটিসিস আক্রান্ত রােগীদের সতর্কতার সাথে ব্যবহার করা উচিত।
  • গুরুতর করােনারি ধমনী রােগের রােগীদের ক্ষেত্রে যত্ন সহ ব্যবহার করুন।
  • ন্যারাে অ্যাঙ্গেল গ্লুকোমা রােগীদের ক্ষেত্রে যত্ন সহ ব্যবহার করুন।
  • মৃগী রােগীদের ক্ষেত্রে যত্ন সহ ব্যবহার করুন।
  • হেপাটিক অক্ষমতার রােগীদের ক্ষেত্রে যত্ন সহ ব্যবহার করুন।
  • মূত্রাশয়ের প্রান্তে বাধা আছে এমন রােগীদের ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত।
  • পাইলােরাে য়ােনােল বাধা আছে এমন রােগীদের ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত।

মাত্রাধিক্যতা

মারাত্মক মাত্রাতিরিক্ততার উপসর্গ বিভিন্ন রকমের ও পরিবর্তনশীল। শিশুদের মধ্যে এদের বিভিন্ন বৈশিষ্টের মিলিত প্রভাব পরিলক্ষিত হয়। যেমন-উত্তেজনা, অসমক্রিয়া, সমন্বয়ের অভাব, হাত পায়ের অস্থিতিশিলতা এবং মতিভ্রম। সেক্ষেত্রে প্রাপ্তবয়স্করা তন্দ্রাচ্ছন্নতা এবং কোমাতে আক্রান্ত হতে পারে। শিশু এবং প্রাপ্ত বয়স্ক উভয়ের ক্ষেত্রেই খিচুনি হতে পারে; কোমা অথবা উত্তেজনাও এর পূর্বে ঘটতে পারে। ট্র্যাকিকাডিয়া দেখা দিতে পারে। হৃদযন্ত্র ও শ্বসনতন্ত্রের অবনমন ঘটার সম্ভাবনা বিরল। ওষুধ সেবনের পরেই যদি রােগীর মধ্যে উল্লেখযােগ্য উপসর্গ দেখা যায় সেক্ষেত্রে প্রােমিথাজিন এর বমিরােধী প্রভাব থাকা সত্ত্বেও সম্ভব হলে ইপিকাকোয়ানহা (এক ধরনের উদ্ভিদ) দ্বারা বমি করার প্রবণতা বৃদ্ধি করা উচিত; বিকল্পভাবে, গ্যাস্ট্রিক ল্যাভেজ (পাকস্থলি ধৌতকরণ) করা যেতে পারে। অন্যথায় সহায়ক চিকিৎসা প্রয়ােগ করতে হবে সাথে শ্বসনতন্ত্র এবং রক্ত সংবহনতন্ত্রের অবস্থার প্রতি পর্যাপ্ত মনােযােগ বজায় রাখতে হবে। খিচুনির চিকিৎসা ডায়াজিপাম অথবা অন্য উপযুক্ত খিঁচুনিরােধী দিয়ে করা উচিত।

থেরাপিউটিক ক্লাস

Anti-emetic drugs, Miscellaneous sedatives & hypnotics, Sedating Anti-histamine

সংরক্ষণ

আলাে থেকে দূরে রাখুন। মেয়াদ শেষ হওয়ার পরে ব্যবহার করা যাবে না। সমস্ত ওষুধ শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন। শুধুমাত্র রেজিস্ট্রার্ড চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী বিক্রয়যােগ্য। প্রোমিথাজিন এর সাথে এলকালিন এর মিল হয় না, কারন এটি তলানিতে গিয়ে জমা হয় প্রােমিথাজিন এর সাথে জমে যায়।