উপাদান

প্রতিটি ক্যাপসুলে আছে-
  • জিঞ্জিবার অফিসিনালি ৫০ মি.গ্রা.
  • পাইপার নাইগ্রাম ৫০ মি.গ্রা.
  • টারমিনালিয়া চেবুলা ৫০ মি.গ্রা.
  • এমব্লিকা অফিসিনালিস ৫০ মি.গ্রা.
  • টারমিনালিয়া বেলেরিকা ৫০ মি.গ্রা.
  • সাইপেরাস রােটানডাস ৫০ মি.গ্রা.
  • প্লাম্বাগাে জিলেনিকা ৫০ মি.গ্রা.
  • কিউমিনাম সাইমিনাম ৫০ মি.গ্রা.
  • কার্বনিল আয়রণ ৫০ মি.গ্রা.

নির্দেশনা

ইহা লৌহের অভাবজনিত রক্ত স্বল্পতা, অপুষ্টিজনিত রক্ত স্বল্পতা, ক্ষুধামন্দা ও সাধারণ দুর্বলতায় নির্দেশিত।

ফার্মাকোলজি

জিঞ্জিবার অফিসিনালি (শুষ্ঠি): এটির উপকারী উপাদান জিঞ্জিবারিন (আলফা এবং বিটা জিঞ্জিবারিন) এবং জিঞ্জিবারল যাহা হজমকারক ও পরিপাকনালীর উদ্দীপক হিসাবে ব্যবহৃত হয়।

পাইপার নাইগ্রাম (মরিচ): এটির প্রধান কার্যকরী উপাদান হচ্ছে পাইপারিন, ক্যাভিসিন, পাইপারিডিন এবং পিপারিটিন। এটি একটি উদ্দীপক এবং বদহজম ও পেটফাপায় কার্যকরী উপাদান।

টারমিনালিয়া চেবুলা (হরিতকী): এটির প্রধান কার্যকরী উপাদান হচ্ছে চেবুলেজিক এসিড, চেবুলেনিক এসিড এবং করিলাজিন। এটি মৃদু রেচক এবং স্বাভাবিক বিরেচনে সহায়ক।

এমব্লিকা অফিসিনালিস (আমলকী): এটির ফলের ত্বকে ফাইলেম্বিন এবং কারকুমিনয়েডস আছে। আমলকীতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, খনিজ উপাদান এবং অ্যামাইনাে এসিড রয়েছে। এটি লৌহ জাতীয় ওষুধের শােষণক্রিয়া বৃদ্ধি করে এবং এর মাধ্যমে এটি লৌহ জাতীয় ওষুধের সাথে ব্যবহারে রক্তশূণ্যতা এবং জন্ডিস নিরাময় করে।

টারমিনালিয়া বেলেরিকা (বহেড়া): এটির ফলত্বকে বিটা-সাইটোস্টেরল ও গ্যালিক এসিড আছে। এটি শােথ, অর্শ এবং উদারাময়ে ব্যবহৃত হয়।

সাইপেরাস রােটানডাস (মুথা): এটির প্রধান উপাদান হচ্ছে সাইপারিন যা বলবৃদ্ধিকারক, উদ্দীপক এবং পাকস্থলীর ব্যথা সহায়ক ও হজমকার।

প্লাম্বাগাে জিলেনিকা (চিত্রক মূল): মূলের ত্বকে আছে প্লাম্বাজিন। এটি রক্তস্বল্পতা এবং বাতের ব্যথায় উপকারী।

কিউমিনাম সাইমিনাম (জিরা): এতে রয়েছে অধিক পরিমাণে জিঙ্ক ও ফলিক এসিড।

কার্বনিল আয়রন: এটি একটি কার্যকরী রক্তবৃদ্ধিকারক উপাদান যা রক্তস্বল্পতা, ক্ষুধামন্দা ও হওয়ার ক্ষেত্রে নির্দেশিত।

মাত্রা ও সেবনবিধি

প্রাপ্ত বয়স্ক মাত্রা: একটি ক্যাপসুল প্রতিদিন একবার আহারের পূর্বে সেবন করা উচিত। ১২ বছরের কম বয়সের শিশুদের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা উচিত নয় ।

ঔষধের মিথষ্ক্রিয়া

অন্য কোন ওষুধের সাথে গুরুত্বপূর্ণ মিথস্ক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়নি।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

এই ক্যাপসুল নির্দেশিত মাত্রায় ব্যবহারে কোন ধরনের পার্শ্ব পতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়নি।

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে

গর্ভকালীন সময়ে এই ক্যাপসুল ব্যবহার কতটা নিরাপদ এ সম্পর্কে কোন তথ্য নেই। তাই গর্ভাবস্থায় ভ্রুনের ক্ষতির তুলনায় লাভের পরিমান যাচাই করে সতর্কতার সাথে ব্যবহার করা বাঞ্চনীয়। মায়ের দুধের সাথে এই ক্যাপসুলের উপাদান নি:সরণের কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

থেরাপিউটিক ক্লাস

Herbal and Nutraceuticals

সংরক্ষণ

ঠাণ্ডা, শুষ্কস্থানে ও আলাে থেকে দূরে, শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন।