উপাদান

প্রতিটি ফিল্ম কোটেড ট্যাবলেটে আছে-
  • ভিটামিন বি১ (থায়ামিন মনোনাইট্রেট) ১০০ মিঃগ্রাঃ
  • ভিটামিন বি৬ (পাইরিডক্সিন হাইড্রোক্লোরাইড) ২০০ মিঃগ্রাঃ
  • ভিটামিন বি১২ (সায়ানোকোবালামিন) ২০০ মাইক্রোগ্রাম।
প্রতিটি ৩ মিঃলিঃ এম্পুলে আছে-
  • ভিটামিন বি১ (থায়ামিন মনোনাইট্রেট) ১০০ মিঃগ্রাঃ
  • ভিটামিন বি৬ (পাইরিডক্সিন হাইড্রোক্লোরাইড) ১০০ মিঃগ্রাঃ
  • ভিটামিন বি১২ (সায়ানোকোবালামিন) ১০০০ মাইক্রোগ্রাম।

নির্দেশনা

ভিটামিন বি১, বি৬, বি১২ এর অভাবজনিত রোগসমূহে নির্দেশিত। এছাড়াও এটি স্নায়ুর প্রদাহ, স্নায়ুর অপ্রদাহজনিত রোগসহ নিম্নের রোগসমূহে নির্দেশিতঃ
  • ডায়াবেটিক নিউরোপ্যাথি
  • পেরিফেরাল নিউরালজিয়া
  • লাম্বাগো
  • মায়ালজিয়া
  • অপটিক নিউরাইটিস
  • সায়াটিকা
  • ফেসিয়াল নিউরালজিয়া
  • ইন্টারকোস্টাল নিউরালজিয়া
  • মেরুদণ্ডের ব্যথা

ফার্মাকোলজি

ভিটামিন বি১ শর্করা, ফ্যাটি এসিড এবং অ্যামাইনো এসিডকে শক্তিতে রূপান্তর করে, স্নায়ুর স্বাস্থ্য ও মন ভাল রাখে এবং হৃৎপিণ্ড শক্তিশালী করে। ভিটামিন বি৬ লোহিত রক্ত কণিকা, প্রোটিন, নিউরোট্রান্সমিটার যেমন সেরোটনিন তৈরি করে এবং জমাকৃত শক্তি মুক্ত করে হৃদরোগ, স্ট্রোক, অবসাদ এবং অনিদ্রা দূর করতে সাহায্য করে। ভিটামিন বি১২ কোষে প্রতিলিপি ও লোহিত রক্ত কণিকা তৈরির জন্য দরকার যা রক্তশূন্যতা, অবসাদ, স্নায়ুর ব্যথা, অসারতা, রক্ত জমাট বাঁধা সমস্যা এবং হৃদরোগজনিত ঝুঁকি কমায় ।

ওষুধের মূল উপাদানগুলো মুখে খাওয়ার পর ভালভাবে শোষিত হয়। এটি বেশিরভাগ টিস্যুতে পরিবাহিত হয় এবং বুকের দুধে পাওয়া যায়। কোষের ভিতরে থায়ামিন, ডাইফসফেট হিসেবে থাকে যা দেহের ভিতরে লক্ষণীয় মাত্রায় সঞ্চিত থাকে না এবং অতিরিক্ত পরিমাণ থায়ামিন মূত্রের মাধ্যমে অপরিবর্তিত অবস্থায় অথবা মেটাবলাইট হিসেবে বের হয়ে যায়। পাইরিডক্সিন, পাইরিডক্সাল এবং পাইরিডক্সামিন মুখে খাওয়ার পর পরিপাকতন্ত্র থেকে ভালভাবে শোষণ হয় এবং সক্রিয়রূপে পাইরিডক্সাল ফসফেট এবং পাইরিডক্সামিন ফসফেটে রূপান্তরিত হয়। এগুলো প্রধানত যকৃতে সঞ্চিত অবস্থায় থাকে যেখান থেকে জারিত হয়ে ৪-পাইরিডক্সিক এসিড এবং অন্যান্য নিষ্ক্রিয় মেটাবলাইট হিসেবে মূত্রের মাধ্যমে বের হয়ে যায়। ওষুধের মাত্রা যত বাড়ানো হয় অপরিবর্তিত অবস্থায় মূত্রের মাধ্যমে বের হয়ে যাওয়ার পরিমাণ তত বেশি হয়।

মাত্রা ও সেবনবিধি

ট্যাবলেটঃ দিনে ১-৩ টি করে ট্যাবলেট অথবা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সেব্য।
ইনজেকশনঃ
  • তীব্র রোগের ক্ষেত্রে: দিনে ১টি এ্যাম্পুল যতক্ষণ পর্যন্ত তীব্র উপসর্গসমূহ প্রশমিত না হয় অথবা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী গৃহীত।
  • মৃদু রোগের ক্ষেত্রে: ১টি ইনজেকশন প্রতি সপ্তাহে ২-৩ বার অথবা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী গৃহীত। এ্যাম্পুল সাধারণত মাংসপেশীতে প্রয়োগ করা হয়।
শিশুদের ব্যবহারঃ শিশুদের ব্যবহারের ক্ষেত্রে এই ঔষধের কোন তথ্য নেই।

ঔষধের মিথষ্ক্রিয়া

এখনো পর্যন্ত তেমন কোন উল্লেখযোগ্য তথ্য পাওয়া যায় নাই।

প্রতিনির্দেশনা

যেসব রোগী লেভোডোপা গ্রহণ করে থাকে বা যারা এই ওষুধের কোন উপাদানের প্রতি অতিমাত্রায় সংবেদনশীল তাদের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যাবে না।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

সাধারণত পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায় না; কিন্তু কিছু ক্ষেত্রে অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়া দেখা যায়।

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে

মুখে সেব্য ট্যাবলেট অনুমোদিত কিন্তু ইনজেকশন এর ব্যবহার বেনজাইল অ্যালকোহলের উপস্থিতির কারণে অনুমোদিত নয়।

সতর্কতা

স্পাইনাল কর্ডের ক্ষয় (ডিজেনারেশন) আছে এমন রোগীর ক্ষেত্রে সায়ানোকোবালামিন ব্যবহার করা উচিত নয়। সায়ানোকোবালামিনের উচ্চ প্লাজমা ঘনত্ব সংশ্লিষ্ট অপটিক নিউরোপ্যাথির চিকিৎসার জন্য ভিটামিন বি১২ এর সায়ানোকোবালামিন মূলকটি উপযোগী নয়।

মাত্রাধিক্যতা

অনুমোদিত মাত্রায় তেমন কোন মাত্রাধিক্যতা জনিত উপসর্গ দেখা যায় না। যদি জানামতে মাত্রাধিক্য হয়ে থাকে তাহলে লক্ষণভিত্তিক এবং সাহায্যকারী চিকিৎসা নির্দেশিত।

থেরাপিউটিক ক্লাস

Specific combined vitamin preparations

সংরক্ষণ

শিশুদের নাগালের বাইরে, আলো থেকে দূরে এবং ঠাণ্ডা (২৫°সে. তাপমাত্রার নিচে) ও শুষ্কস্থানে রাখুন।