নির্দেশনা

নিন্মলিখিত অ্যাকিউট করোনারী-এর যে সমস্ত রোগীর পারকিউটেনিয়াস করোনারী ইন্টারভেনশন করতে হবে তাদের থ্রম্বটিক কার্ডিওভাস্কুলার ইভেন্ট (স্টেন্ট থ্রম্বসিস সহ) কমানোর জন্য প্রাসুগ্রেল নির্দেশিত।
  • যে সমস্ত রোগীর আনস্টেবল অ্যানজাইনা অথবা নন এস টি এলিভেটেড মায়োকার্ডিয়াল ইনফার্কশন আছে।
  • যে সমস্ত রোগীর এস টি এলিভেটেড মায়োকার্ডিয়াল ইনফার্কশন আছে তাদের যখন প্রারম্ভিক অথবা পরবর্তীতে পারকিউটেনিয়াস করোনারী ইন্টারভেনশন করতে হবে।

ফার্মাকোলজি

প্রাসুগ্রেল এর সক্রিয় মেটাবোলাইট অনুচক্রিকায় অবস্থিত P2Y12 শ্রেনীর ADP রিসেপ্টরের সাথে অপরিবর্তনীয় বন্ধন তৈরী করে অনুচক্রিকার সক্রিয় হওয়া ও জমাট বাধা প্রতিরোধ করে।

মাত্রা ও সেবনবিধি

চিকিৎসার শুরুতে ৬০ মিঃগ্রাঃ ওরাল (মুখে) লোডিং ডোজ দিয়ে শুরু করতে হবে। ১০ মিঃগ্রাঃ দৈনিক একবার করে খাদ্যের সাথে অথবা খাদ্য ছাড়া খেতে হবে। যে সব রোগীর ওজন ৬০ কেজির নিচে তাদের ৫ মিঃগ্রাঃ করে খেতে হবে। রোগীদের প্রতিদিন এ্যাসপেরিন ও খেতে হবে (৭৫ মিঃগ্রাঃ থেকে ৩২৫ মিঃগ্রাঃ)

ঔষধের মিথষ্ক্রিয়া

  • ওয়ারফারিনের সাথে প্রাসুগ্রেল খেলে রক্তপাতের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।
  • NSAIDs এর সাথে প্রাসুগ্রেল খেলে (দীর্ঘদিনের ক্ষেত্রে) রক্তপাতের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।
  • সাইটোক্রোম P450 এনজাইম বৃদ্ধিকারক অথবা নিরোধক ওষুধের সাথে প্রাসুগ্রেল দেয়া যাবে। প্রাসুগ্রেল এ্যাসপেরিন, হেপারিন, গ্লাইকোপ্রোটিন GPIIb/IIIa নিরোধক, স্ট্যাটিন, যেসব ওষুধ পাকস্থলিতে এ্যসিড নিঃসরণ বাড়ায় এবং প্রোটন পাম্প রোধক অথবা H2 রোধকের সাথে দেয়া যাবে।

প্রতিনির্দেশনা

  • সক্রিয় প্যাথলজিক্যাল রক্তক্ষরণ যেমন: পেপটিক আলসার অথবা মস্তিস্কে রক্তক্ষরণ।
  • যেসব রোগীর আগে ট্রানজিয়েন্ট ইসকেমিক অ্যাটাক অথবা স্টোকের ইতিহাস আছে।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

  • রক্তক্ষরণ
  • থ্রম্বটিক থ্রম্বসাইটোপেনিক পারপুরা
  • অন্যান্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া (মাথাব্যথা, পিঠে ব্যথা, শ্বাস প্রশ্বাসে অসুবিধা, বমি বমি ভাব, উচ্চ রক্তচাপ, ব্রাডিকার্ডিয়া, র‌্যাশ ইত্যাদি)।

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে

গর্ভাবস্থায় প্রাসুগ্রেল এর ব্যবহার সম্পর্কে যথেষ্ট এবং সুনিয়ন্ত্রিত পরীক্ষা পাওয়া যায়নি। ইঁদুর ও খরগোশের উপরে মানুষের থেরাপিউটিক ডোজের ৩০ গুন বেশী দেয়ার পর প্রজনন ও বৃদ্ধিতে বিষক্রিয়াজনিত পরীক্ষায় Fetus এর কোন ক্ষতি পাওয়া যায়নি। যদিও অন্য প্রাণীর ওপর করা পরীক্ষা থেকে মানুষের ওপরে এর ক্রিয়া সম্পর্কে সবসময় ধারণা করা যায় না।

প্রাসুগ্রেল মাতৃদুগ্ধে নিঃসৃত হয় কিনা তা জানা যায় নি। যেহেতু অনেক ওষুধই মাতৃদুগ্ধে নিঃসৃত হয় তাই স্তন্যদানকারী মায়ের ক্ষেত্রে প্রাসুগ্রেল এর সম্ভাব্য উপকারীতা ও শিশুর সম্ভাব্য ক্ষতির কথা বিবেচনা করে তারপর দিতে হবে।

সতর্কতা

সিএবিজি সম্পর্কিত রক্তক্ষরণ: যেসব রোগী সিএবিজি করতে যাচ্ছে প্রাসুগ্রেল গ্রহণে তাদের ঝুঁকি বাড়ে।
প্রাসুগ্রেল বন্ধ করে দেওয়া: হঠাৎ প্রাসুগ্রেল খাওয়া বন্ধ করে দিলে স্টেন্ট থ্রম্বোসিস, এম আই এবং মৃত্যুর ঝুঁকি বেড়ে যায়।

বিশেষ ক্ষেত্রে ব্যবহার

শিশুদের ক্ষেত্রে: শিশুদের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা ও কার্যকারিতা প্রতিষ্ঠিত নয়।

বৃদ্ধদের ক্ষেত্রে: ৭৫ বা তার বেশী বয়সের বৃদ্ধদের প্রাসুগ্রেল ব্যবহারের ক্ষেত্রে রক্তক্ষরণের সম্ভাবনা বেশী (১.০%), ক্লপিডোগ্রেল ব্যবহার করা রোগীদের তুলনায় (০.১%)

বৃক্কের অসম কার্যকারিতায়: রেনাল ইম্পেয়ারমেন্ট এর ক্ষেত্রে ডোজ কমানোর বা বাড়ানোর প্রয়োজন নেই। এন্ড স্টেজ রেনাল ডিজিজের রোগীর ক্ষেত্রে কম অভিজ্ঞতা রয়েছে।

যকৃতের অসম কার্যকারিতায়: মৃদু থেকে মাঝারী হেপাটিক ইমপেয়ারমেন্ট রোগীদের ক্ষেত্রে ডোজ বাড়ানো বা কমানোর দরকার নেই।

মাত্রাধিক্যতা

ইঁদুরে ২০০০ মিঃগ্রাঃ/কেজি দেয়ার পরে লিথালিটি পাওয়া গেছে। প্লাটিলেট ট্রান্সফিউশন করে রক্ত জমাট বাধার ক্ষমতা ফিরিয়ে আনা যায়। ডায়ালাইসিসের মাধ্যমে প্রাসুগ্রেল এর সক্রিয় মেটাবোলাইট দুর করা সম্ভব নয়।

থেরাপিউটিক ক্লাস

Anti-platelet drugs

সংরক্ষণ

আলো ও তাপ থেকে দূরে, শুষ্ক স্থানে রাখুন। শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন।