Unit Price: ৳ 15.00 (10's pack: ৳ 150.00)

নির্দেশনা

এটরভাসটাটিন খাদ্যের সাথে সম্পূরক হিসাবে বর্ধিত টোটাল কোলেস্টেরল, LDL কোলেস্টেরল, এপোলিপোপ্রোটিন-বি (এপো-বি) এবং ট্রাইগ্লিসারাইড কমানোর জন্য যেখানে খাদ্য বা ননফার্মাকোলজিক্যাল ব্যবস্থা অপর্যাপ্ত সেখানে নিম্নলিখিত রোগের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়।
  • হোমোজাইগাস ও হেটারোজাইগাস ফ্যামিলিয়াল হাইপারকোলেস্টেরোলেমিয়া রোগীর টোটাল কোলেস্টেরল ও LDL কোলেস্টেরল কমাতে।
  • মিক্সড ডিসলিপিডেমিয়া (ফ্রেডরিকসন টাইপ-Ia ও Ib) রোগীর বর্ধিত কোলেস্টেরল ও ট্রাইগ্লিসারাইড কমাতে।
  • হাইপারট্রাইগ্লিসারাইডেমিয়া (ফ্রেডরিকসন টাইপ-IV) রোগীর বর্ধিত সিরাম ট্রাইগ্লিসারাইড কমাতে।
  • ডিসবেটালিপোপ্রোটিনেমিয়া (ফ্রেডরিকসন টাইপ-III) রোগীর এপোলিপোপ্রোটিন-বি কমাতে।
  • বর্ধিত LDL কোলেস্টেরল আছে এমন এসিম্পটোম্যাটিক বা মৃদু থেকে মৃদুতর সিম্পটোম্যাটিক করোনারী আর্টারী রোগের কার্ডিয়াক ইস্কেমিক পর্যায় কমাতে।
  • ডায়াবেটিস ম্যালাইটাস এবং রেনাল ট্রান্সপ্লান্ট হয়েছে এমন রোগীর বর্ধিত টোটাল কোলেস্টেরল, LDL কোলেস্টেরল কমাতে।

ফার্মাকোলজি

এটরভাসটাটিন HMG-CoA রিডাকটেজ এর একটি সুনির্দিষ্ট প্রতিবন্ধক। এই এনজাইম বিক্রিয়ার গতি নির্দেশক একটি এনজাইম যা HMG-CoA কে মেভালোনেট-এ রূপান্তর করে। মেভালোনেট কোলেস্টেরল সহ অন্যান্য স্টেরল তৈরীর একটি পূর্ববর্তী উপাদান। এটরভাসটাটিন HMG-CoA রিডাকটেজকে বাধা প্রদান করে কোলেস্টেরল তৈরী হ্রাসের মাধ্যমে এবং যকৃতে LDL এর অধিঃগ্রহণ ও অপচিতিক্রিয়া বৃদ্ধির জন্য যকৃত কোষের পৃষ্টদেশে LDL রিসেপ্টরের সংখ্যা বৃদ্ধির মাধ্যমে রক্তরসে কোলেস্টেরল ও লিপোপ্রোটিনের পরিমাণ কমায়।

মাত্রা ও সেবনবিধি

প্রাইমারী হাইপারকোলেস্টেরোলেমিয়া ও কম্বাইন্ড হাইপারলিপিডেমিয়া-
  • পূর্ণবয়স্ক: সাধারণত ১০ মিঃগ্রাঃ দিনে একবার। যদি প্রয়োজন হয়, অন্ততঃ ৪ সপ্তাহ বিরতিতে দৈনিক সর্বোচ্চ ৮০ মিঃগ্রাঃ পর্যন্ত বাড়ানো যেতে পারে।
  • শিশু (১০-১৮ বছর): শুরুতে ১০ মিঃগ্রাঃ দিনে একবার। যদি প্রয়োজন হয়, অন্ততঃ ৪ সপ্তাহ বিরতিতে দৈনিক সর্বোচ্চ ২০ মিঃগ্রাঃ পযন্ত বাড়ানো যেতে পারে।
ফ্যামিলিয়াল হাইপারকোলেস্টেরোলেমিয়া-
  • পূর্ণবয়স্ক: প্রাথমিকভাবে ১০ মিঃগ্রাঃ দিনে একবার যা অন্ততঃ ৪ সপ্তাহ বিরতিতে ৪০ মিঃগ্রাঃ দিনে একবার বাড়ানো যাবে। যদি আরো প্রয়োজন হয়, দৈনিক সর্বোচ্চ ৮০ মিঃগ্রাঃ পর্যন্ত বাড়ানো যাবে (অথবা হেটারোজাইগাস হাইপারকোলেস্টেরোলেমিয়ার ক্ষেত্রে ৪০ মিঃগ্রাঃ দিনে একবার এনায়ন এক্সচেঞ্জ রেজিনের সাথে) ।
  • শিশু (১০-১৮ বছর): শুরুতে ১০ মিঃগ্রাঃ দিনে একবার। যদি প্রয়োজন হয়, অন্ততঃ ৪ সপ্তাহ বিরতিতে দৈনিক সর্বোচ্চ ৮০ মিঃগ্রাঃ পর্যন্ত বাড়ানো যেতে পারে।
কার্ডিওভাসকুলার ইভেন্ট প্রতিরোধ-
  • পূর্ণবয়স্ক: শুরুতে ১০ মিঃগ্রাঃ দিনে একবার যা রেসপন্স অনুসারে সমন্বয় করতে হবে।

ঔষধের মিথষ্ক্রিয়া

এটরভাসটাটিনের সাথে সাইক্লোস্পোরিন, ফিব্রিক এসিড ডেরিভেটিভ, এরিথ্রোমাইসিন, এজোল এন্টিফাংগাল এবং নিয়াসিন প্রদান করলে মায়োপ্যাথি হবার ঝুঁকি বেড়ে যায়। উচ্চ রক্তচাপ বিরোধী অথবা হাইপোগ্লাইসেমিক ঔষধের সাথে এটরভাসটাটিনের কোন উল্লেখযোগ্য ক্লিনিক্যাল প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। এটরভাসটাটিনের সাথে ডিগক্সিন, এরিথ্রোমাইসিন, ওরাল কন্ট্রাসেপটিভ, কলেস্টিপল, এন্টাসিড এবং ওয়ারফারিন দেয়া হলে রোগীকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখতে হবে।

প্রতিনির্দেশনা

যে সমস্ত রোগী এই ঔষধের যে কোন উপাদানের প্রতি অতিসংবেদনশীল তাদের ক্ষেত্রে এটরভাসটাটিন ব্যবহার করা যাবে না। সক্রিয় যকৃতের রোগ, কোন কারণ ছাড়া সিরাম ট্রান্সএমাইনেজ বৃদ্ধি ইত্যাদি ক্ষেত্রে এটরভাসটাটিন প্রতিনির্দেশিত। HMG-CoA রিডাকটেজ প্রতিবন্ধক ব্যবহার করার পর যে সমন্ত রোগীর মারাত্বক বিরূপ প্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয় তাদের ক্ষেত্রে এটি প্রতিনির্দেশিত।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

এটরভাসটাটিন সাধারণত সুসহনীয়। এটরভাসটাটিন ব্যবহারের ফলে সর্বাধিক দেখা যায় এমন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলো হলো-কোষ্ঠকাঠিন্য, পেটফাঁপা, বদহজম, পেটব্যথা। অন্যান্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলো হলো-সংক্রমন, মাথা ব্যথা, পিঠে ব্যথা, রেশ, এসথেনিয়া, হাড়ের ব্যথা, মাংসপেশীর ব্যথা।

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে

গর্ভাবস্থায়: গর্ভাবস্থায় এ্যাটোরভাস্টাটিন গ্রহন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে এটির নিরাপদ ব্যবহার এখনও প্রতিষ্ঠিত হয়নি। গর্ভবতী মহিলাদের উপর এ্যাটোরভাস্টাটিন সম্পর্কিত কোন নিয়ন্ত্রিত ক্লিনিক্যাল ট্রায়েল করা হয় নাই। দুর্লভ ক্ষেত্রে, HMG-CoA রিডাকটেজ ইনহিবিটরের গর্ভকালীন ব্যবহারে জন্মগত ত্রুটি এর সম্পর্ক দেখা যায়। প্রানিদের ক্ষেত্রে প্রজননে বিষক্রিয়া দেখা গিয়েছে। প্রসব কালীন চিকিৎসায় এ্যাটোরভাস্টাটিনের ব্যবহার ভ্রুনের মেভালোনেটের (কোলেস্টেরল উৎপাদনের প্রধান উপাদান) মাত্রা কমিয়ে দেয়। গর্ভবতী, গর্ভধারনের চেষ্টা করছেন এমন অথবা যাদের গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এরূপ মহিলাদের ক্ষেত্রে এ্যাটোরভাস্টাটিন ব্যবহার করা যাবে না। গর্ভাবস্থায় বা যতদিন প্রমানিত না হয় যে রোগী গর্ভবর্তী ততদিন এ্যাটোরভাস্টাটিনের ব্যবহার বন্ধ রাখতে হবে।

স্তন্যদান: এ্যাটোরভাস্টাটিন বা এর কোন মেটাবোলাইট মাতৃদুগ্ধ থেকে নিঃসৃত হয় নাকি সেটা এখন জানা যায়নি। ইঁদুরের ক্ষেত্রে, এ্যাটোরভাস্টাটিনের প্লাজমা ঘনত্ব দুগ্ধে নিঃসৃত এ্যাটোরভাস্টাটিনের সমতুল্য। তীব্র পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকার কারনে যে সকল মহিলারা তাদের বাচ্চাদের স্তন্যদান করেন তাদের ক্ষেত্রে এ্যাটোরভাস্টাটিন না ব্যবহার করাই উচিত। এ্যাটোরভাস্টাটিন স্তন্যদানকালে সেবনযোগ্য নয়।

সতর্কতা

যকৃতের উপর প্রভাবঃ চিকিৎসা শুরুর আগে এবং চিকিৎসা শুরুর পরে নির্দিষ্ট সময়ের ব্যবধানে যকৃতের কার্যকারিতার পরীক্ষাগুলো করতে হবে। যাদের যকৃতের রোগ আছে অথবা যারা অতিরিক্ত পরিমাণে এলকোহল সেবন করে তাদের ক্ষেত্রে সতর্কতার সাথে এটরভাসটাটিন ব্যবহার করতে হবে। CPK লেভেল অতিরিক্ত বৃদ্ধি পেলে অথবা মায়োপ্যাথি দেখা দিলে বা দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা থাকলে এটরভাসটাটিন থেরাপি বন্ধ করতে হবে।

বিশেষ ক্ষেত্রে ব্যবহার

যকৃতের (লিভারের) সমস্যা: লিভারের সমস্যায় আক্রান্ত রোগীদের ক্ষেত্রে এ্যাটোরভাস্টাটিন সতর্কতার সাথে সেবন করতে হবে।

শিশুদের ক্ষেত্রে: ১০ বছর বা তার অধিক বয়সী রোগীদের ক্ষেত্রে এ্যাটোরভাস্টাটিন প্রারম্ভিক দৈনিক মাত্রা ১০মিঃগ্রাঃ থেকে শুরু করে টাইট্রেশনের মাধ্যমে ২০মিঃগ্রাঃ পর্যন্ত দেওয়া যাবে। ১০ বছরের নিচের শিশুদের কে দেওয়া যাবে না।

মাত্রাধিক্যতা

এ্যাটোরভাস্টাটিনের মাত্রাতিরিক্ততার ক্ষেত্রে কোনো নির্দিষ্ট চিকিৎসা নেই। যদি কোনো রোগী অতিমাত্রায় গ্রহন করে ফেলে তাহলে উপসর্গ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে। যকৃতের কার্যক্ষমতা এবং সেরাম ক্রিয়েটিনিন কাইনেজ লেভেল পরীক্ষা করতে হবে। যেহেতু এ্যাটোরভাস্টাটিন ব্যপকভাবে প্লাজমা প্রোটিনের সাথে আবদ্ধ হয় সেজন্য হেমোডায়ালাইসিস সম্পূর্ণরূপে এ্যাটোরভাস্টাটিন কে শরীর থেকে বের করে দিতে পারে না।

থেরাপিউটিক ক্লাস

Other Anti-anginal & Anti-ischaemic drugs, Statins

সংরক্ষণ

আলো ও তাপ থেকে দূরে, শুষ্ক স্থানে রাখুন। শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন।